Indian Traffic Rules: এই নিয়ম গুলো না জানলে আপনাকে দিতে হতে পারে জরিমানা

Share It!

আপনি নিশ্চয়ই ট্রাফিক নিয়মের কথা শুনেছেন, কোথাও না কোথাও রাস্তার ধরে এই সংক্রান্ত Sign Board এ লেখাও দেখেছেন। অথবা আপনি যখনই রাস্তায় গাড়ি চালাবেন, রাস্তার পাশে অবশ্যই আপনার সামনে অনেক ট্রাফিক সিগন্যাল এসেছে। যার অর্ধেক হয়তো আপনি জানেন বাকি অর্ধেক হয়তো সঠিক ভাবে জানেন না। 

ভারত সরকার সড়ক নিরাপত্তার জন্য অনেক নিয়ম করেছে। যা অনুসরণ করে আমরা গাড়ি চালালে সড়ক দুর্ঘটনার কোনো সম্ভাবনা থাকে না। কিন্তু ট্রাফিক নিয়ম অমান্য করলে সড়ক দুর্ঘটনার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আজ আপনি এই নিবন্ধে ট্রাফিক নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেতে যাচ্ছেন।

ভারত সরকার দ্বারা, শুধুমাত্র 18 বছরের বেশি বয়সী একজন ব্যক্তিকে গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়, কিন্তু লোকেরা এটি অনুসরণ করে না এবং শিশুদের গাড়ি দেয়, যার কারণে দুর্ঘটনা ঘটে। ছোট বাচ্চাদের ট্রাফিক নিয়ম সম্পর্কে তেমন জ্ঞান না থাকার কারণেই এমনটা হয়।

এমনকি গাড়ি চালানোর সময় শিশুদের সামনে কোনো ধরনের ট্রাফিক sign board (যেখানে ট্রাফিক নিয়ম লেখা থাকে) চলে আসলেও তা না জানার কারণে তারা এগিয়ে যায়। 

উদাহরণস্বরূপ, ধরুন সামনের রাস্তাটি কিছুটা গিয়ে বন্ধ হয়ে গেছে, যদি এমন কোনও রোড সেফটি সিম্বল আসে, তবে শিশুরা এটি সম্পর্কে জানে না এবং তারা এগিয়ে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়। আজকের নিবন্ধে ট্রাফিক নিয়মের আপনি সম্পূর্ণ তথ্য পেতে যাচ্ছেন।

আরো পড়ুন: Motivational Story – নরেনের এই গল্প আমাদের কঠিন মানসিকতার পরিচয় শেখায়

আমি আন্তরিকভাবে আশা করি যে আপনি যদি এই নিবন্ধটি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে আপনার ড্রাইভিং অভিজ্ঞতাও উন্নত করবে। তো চলুন, জেনেনি ট্রাফিক নিয়ম বিস্তারিত তথ্য।

ভারতের ট্রাফিক নিয়ম

আপনি ট্রাফিক নিয়ম প্রতীক সম্পর্কে যাওয়ার আগে, মৌলিক ভারতের ট্রাফিক নিয়ম সম্পর্কে জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রথমত গাড়ি চালানোর সময় মৌলিক নিয়ম মেনে চলা আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি আপনার ড্রাইভিং অভিজ্ঞতা উন্নত করবে। 

১. ট্রাফিকের প্রথম এবং প্রধান মৌলিক নিয়ম হল গাড়ি চালানোর আগে আপনাকে অবশ্যই সবসময় সিট বেল্ট এবং হেলমেট ব্যবহার করতে হবে। এতে আপনি সবচেয়ে বেশি সুরক্ষিত হবেন, গাড়ির ভিতরেও নিরাপদ থাকবেন।

২. কোনো চারমাথা মোর বা crossing এ এলে আপনার গাড়ির গতি কমিয়ে দিন, এমনকি ভিড় বা বাজারের জায়গায়ও ধীরে চালান।

৩. পার্কিং লটে সর্বদা আপনার গাড়ী সঠিকভাবে রাখুন। যাতে অন্য কারো গাড়ি বের করতে কোনো সমস্যা না হয়।

৪. নো পার্কিং আছে এমন জায়গায় কখনই গাড়ি পার্ক করবেন না। সেক্ষেত্রে আপনার সমস্যা হতে পারে।

আরো পড়ুন: দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে ডায়েটে এই জিনিসগুলো অবশ্যই রাখুন

৫. বিনা কারনে কখনো হর্ন বাজাবেন না। কারণ আপনার হর্নের শব্দে জ্যাম দ্রুত খুলবে না। তা না হলে শব্দ দূষণ ছড়ায়। এ ছাড়া সামনের ব্যক্তিরও সমস্যা হয়। জ্যাম হওয়ার সময় ধৈর্য্য ধরে অপেক্ষা করতে হবে, তাড়াহুড়ো করবেন না।

৬. গাড়ি চালানোর সময় কখনই আপনার সামনের গাড়ির সাথে রেস (Race) করবেন না। এতে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ট্রাফিক নিয়ম অনুযায়ী আপনার নির্দিষ্ট গতিতে গাড়ি চালান। সামনের গাড়ির সঙ্গে দৌড় দিয়ে ওভারটেক করার চেষ্টা করলে দু’জনেরই দুর্ঘটনার মুখে পড়তে হতে পারে।

৭. বাঁক নেওয়ার চেষ্টা করার সময় কখনই ভুল দিকে গাড়ি চালাবেন না। এটা করা আপনার পক্ষে কঠিন হতে পারে। এই অবস্থায় কিছুদূর এগিয়ে গিয়ে গাড়ি ঘুরিয়ে নিতে পারেন।

৮. যদি কখনও রাস্তায় জ্যাম হয়, বা আপনি এমন জায়গায় যান যেখানে সমস্ত যানবাহন এক লেনে চলছে (one way), তবে আপনার ট্র্যাফিক নিয়ম মেনে লেন ভাঙা উচিত নয়।

Read More:  স্বাস্থ্য ও শারীর শিক্ষা তৃতীয় শ্রেণির প্রশ্ন উত্তর 2023

৯. আপনি যদি খুব তাড়াহুড়ো করে কোথাও যাচ্ছেন এবং আপনার সামনে পুরো রাস্তা ফাঁকা, তবে ফাঁকা রাস্তা দেখে গাড়ির গতি বাড়াবেন না, কারণ অনেক জায়গায় স্কুলের ছেলেমেয়েরা হটাৎ করে রাস্তা পার হবে বা অনেক সময় হঠাৎ কেউ আপনার গাড়ির সামনে এসে পড়লে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

১০. গাড়িটি চলার সময় যদি আপনার পিছনে একটি অ্যাম্বুলেন্স থাকে তবে প্রথমে এটিকে সর্বপ্রথম এগিয়ে দেবার চেষ্টা করবেন।

১১. এই সমস্ত ট্রাফিক নিয়মগুলি ছাড়াও, মৌলিক ট্রাফিক নিয়মগুলি হল যে আপনি সর্বদা আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স আপনার সাথে রাখবেন। এখন M-Poribahan মোবাইল App এর মধ্যেও রেজিস্টার করে সব নথি ডিজিটাল আকারে রেখে দিতে পারবেন। এতে নথি হারাবার কোনো ভয় থাকবে না।  যদি কোনও নথির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়, তবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি পুনর্নবীকরণ করুন।

আরো পড়ুন: 5G Technology কি। 5G Network এর ক্ষতিকারক দিক

Traffic Light Signals Meaning

ভারতে ট্রাফিক নিয়ম মেনে চলা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সরকার সব ট্রাফিক নিয়ম খুব ভেবেচিন্তে তৈরি করেছে। যাতে নাগরিকরা নিরাপদ থাকে। এর মধ্যে ট্রাফিক সিগন্যাল খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

লাইট সিগন্যাল যা আপনি মোড়ে মোড়ে দেখে থাকবেন। যার মধ্যে তিনটি রঙের আলো, লাল আলো, হলুদ আলো এবং সবুজ আলো। তো চলুন জেনে নিই ট্রাফিক লাইট সিগন্যাল আসল মানে কি:

Traffic Light Signals

লাল আলো (Red Light)

ট্রাফিকের এই তিনটি  আলোর মধ্যে প্রধান এবং প্রথমটি হল লাল। লাল আলো মানে থামা (Stop)। যদি আপনি একটি মোড়ে বা রাস্তায় একটি লাল আলো জ্বলতে দেখেন, তাহলে এর মানে হল যে লাল বাতি পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে।

হলুদ আলো (Yellow Light)

যখন হলুদ আলো জ্বলে, এর অর্থ গাড়ি এগোবার জন্য প্রস্তুত হন। আপনি যখন লাল আলোতে থামবেন, তখন হলুদ বাতি জ্বললে আপনার হাঁটার জন্য প্রস্তুত হওয়া উচিত অথবা গাড়ির গতি খুব slow করে দিতে হবে। 

Read More:  Inverter AC: ইনভার্টার AC এবং নরমাল AC এর মধ্যে পার্থক্য কোথায় ? জানুন কোন AC টা কেনা আপনার জন্য বেশী লাভজনক

সবুজ আলো (Green Light)

সবুজ আলো জ্বললে আপনার গাড়ি তৎক্ষণাৎ এগোতে শুরু করে দেবে। সাধারণত লাল আলোর পর হলুদ আলো এবং সবার শেষে সবুজ আলো জ্বালানো হয়। এসব ট্রাফিক নিয়ম মেনে চললে প্রতিদিন অনেক দুর্ঘটনা এড়ানো যায়।

আরো পড়ুন: দাঁতকে ভালো রাখার ৭টি ঘরোয়া উপায়

আরো পড়ুন: খাওয়ার ইচ্ছা কি কমে গেছে ? তাহলে শরীরে কি এই পুষ্টির অভাব আছে

Leave a Comment