ওজন কমানোর ৫ টি সেরা Health Drinks

Share It!

ওজন হ্রাস কোনো একটি স্বল্প-মেয়াদী প্রক্রিয়া নয়। কখনোই এটা ভাবা ঠিক না যে রাতারাতি এক দিনের মধ্যেই আপনার ওজন কমে যাবে। উপযুক্ত ডায়েটের পাশাপাশি, জীবনযাত্রার পরিবর্তন এবং নিয়মিত শারীরিক অনুশীলনের প্রয়োজন। তার সাথে কয়েকটি পানীয় শরীরের বিপাকীয় হারকে বাড়িয়ে তোলার ক্ষেত্রে খুব সহায়ক। যার জন্য শরীরের ওজন হ্রাস প্রক্রিয়াটিকে ভালোভাবে সম্পন্ন হয়।আপনি যখন ওজন হ্রাস করার নিয়মিত চেষ্টা করছেন, তখন এই জাতীয় Healthy Drinks খুবই  প্রয়োজন।

কফি, গ্রিন টি, এবং উচ্চ-প্রোটিন যুক্ত কিছু পানীয় আছে যা শরীরের পরিপাক ক্রিয়া উন্নতি করতে ভীষণ ভাবে সাহায্য করে। শুধু তাই নয় এই ড্রিঙ্কস গুলো metabolism প্রক্রিয়াকে ভালো রাখে এবং ক্ষিদে পাওয়ার প্রবণতা হ্রাস করে। যার ফলে ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে। দীর্ঘ সময়ের জন্য শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজন অনুযায়ী আপনার ডায়েটে কয়েকটি Healthy ড্রিঙ্কস যুক্ত করা উচিত। কারণ এগুলি ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে শুধু তাই না, শরীরকে সুস্থ এবং সতেজ রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

Green Tea

গ্রিন টি (Green Tea) দেহে পরিপাক প্রক্রিয়াকে বাড়িয়ে তোলে এবং এভাবে শরীরের ওজনকে প্রাকৃতিকভাবে হ্রাস করতে সাহায্য করে। গ্রিন টি খাদ্য ও তার জলীয় অংশকে ভেঙে দেহের ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলে। এগুলি পরে দেহের দ্বারা ব্যবহারযোগ্য শক্তিতে রূপান্তরিত হয়। এটিতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে থাকে যা শরীরকে ক্ষতি। এছাড়া বয়সকে বিলম্বিত করতে সহায়তা করে।

এছাড়াও চায়ে পাওয়া যায় এমন এক ধরণের ফেনোলিক যৌগ যা ক্যাটিচিনস। গ্রিন টিতে মোট ক্যাটচিনগুলির 50-80% EGCG রয়েছে। এখানে উপস্থিত এই ইজিসিজিতে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টিবাবেসিটি, অ্যান্টিক্যান্সার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য। গ্রিনটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস ক্যাটচিনস সমৃদ্ধ যা চর্বি ঝরাতে সাহায্য করে।

Read More:  যোগের [YOGA] ২০টি উপকারিতা। ওজন কমাতে যোগার উপযোগিতা

আরো পড়ুন: গ্রীন টি [Green Tea] এর উপকারিতা এবং অপকারিতা

Black Coffee

ব্ল্যাক কফি ওজন কমাতে একটি বিশেষ ভূমিকা নেয়। আসলে এটিতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসাবে ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড রয়েছে। একটি গবেষণা অনুসারে, ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড (CGA) প্রভাব ওজন কমাতে সাহায্য করে। তাই  বলা যেতে পারে যে কফি ওজন হ্রাস করতে যথেষ্ট সহায়ক।

ওজন হ্রাস করার জন্য ব্ল্যাক কফির ব্যবহার উপকারী কারণ এটি ক্ষিদে হ্রাস করতে সহায়তা করে। এ সম্পর্কিত একটি গবেষণায় স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে যে কফিতে উপস্থিত ক্যাফিন ক্ষিদে পাবার মাত্রা হ্রাস করতে পারে। ফলস্বরূপ, এটি ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। তাই ধরে নেওয়া যেতে পারে যে কালো কফি বা Black Tea ওজন হ্রাস জন্য উপকারী ড্রিঙ্কস।

আরো পড়ুন: যোগের [YOGA] ২০টি উপকারিতা, ওজন কমাতে যোগার উপযোগিতা

Ginger Juice

প্রায় প্রতিটি ভারতীয় রান্নাঘরে আদা প্রধান উপাদান হিসাবে ব্যবহৃত হয়। সর্দি হলে আদার ব্যবহার অপরিহার্য। গলা ব্যথা অপসারণ করতেও এর ব্যবহার করা হয়। তবে এর প্রভাবে সাধারণত শরীর গরম হয়ে যায়, তাই এটি গ্রীষ্মে অল্প পরিমাণে খাওয়া উচিত। আদাতে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য ইত্যাদি উপাদান রয়েছে যা আপনার শরীরে প্রায়ই যে সমস্যা দেখা যায় যেমন সর্দি এবং গলা ব্যথা, আদার জল এর জন্য খুবই উপকারী।

আদাতে shogaols এবং gingerols নামক যৌগ থাকে। আপনি যখন আদা খাবেন তখন এই দুটি যৌগ দেহের জৈবিক ক্রিয়াকলাপ বাড়ায়। এতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট বৈশিষ্ট্য উপাদানগুলো free radical সাথে লড়াই করে, ফলে প্রদাহের সমস্যা হ্রাস পায়। একটি সমীক্ষায় দেখা যায় যে আদা খাওয়ার লোকেরা এবং না খাওয়ার লোকেদের চেয়ে বেশি সময় ধরে পেট ভরা অনুভব করে। এটি প্রধানত হিপ থেকে শুরু করে কোমর পর্যন্ত একটি বিশেষ প্রভাব ফেলে।

আরো পড়ুন: মানসিক স্বাস্থ্যকে দৃঢ় করার ৮ টি সুপারফুড [Super-food]

Read More:  মেয়েদের ওজন কমানোর সেরা ডায়েট চার্ট [Diet chart] 2023

Vegetable Juice

ওজন কমানো আজকের যুগে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। বহু Journal এ প্রকাশ পেয়েছে যে ভারতে স্থূলত্ব দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। স্থূলত্বের কারণে অনেক রোগ হচ্ছে। কিন্তু যখন ওজন হ্রাস করার কথা আসে তখন সহজেই ওজন কমাতে কী খাওয়া উচিত তা প্রত্যেকেই ভাবেন। 

কমলা লেবুর রস

আপনি যখন ওজন হ্রাস করার নিয়মিত চেষ্টা করছেন, তখন এই জাতীয় ডায়েট প্রয়োজন। যা কমপক্ষে খাওয়ার মাধ্যমে আপনার শরীরে ভিটামিন এবং পুষ্টি সরবরাহ করতে পারে। কমলার রস আপনাকে একক গ্লাসে সমস্ত প্রয়োজনীয় ভিটামিন সরবরাহ করে এবং ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে।

আরো পড়ুন: মেয়েদের ওজন কমানোর সেরা ডায়েট চার্ট [Diet chart] 2021

আমলার রস

আপনি যখনই ওজন হ্রাস সম্পর্কে কথা বলবেন, প্রথম প্রশ্নটি আসে কীভাবে হজম ব্যবস্থা ঠিক করা যায়, যদি আপনার হজম ব্যবস্থা ঠিক না থাকে। এই আমলার রস  সহায়ক। যার জন্য আপনি সহজেই ওজন হ্রাস করতে পারেন। এগুলি ছাড়াও, আমলার রস খেলে পাচনতন্ত্রের পুনরুদ্ধার ঘটে, ফলে বিপাকের উন্নতি ঘটে যা আপনাকে ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে।

গাজরের রস

এই রসটিও নিয়মিত ভাবে আপনি সকালে উঠে  খেতে পারেন। ফলসরূপ আস্তে আস্তে আপনার শরীরের ওজন  কমতে থাকবে। গাজরে প্রচুর পরিমাণে ফাইবারযুক্ত, যা আপনার ক্ষিদে নিবারণ করে। এছাড়াও এটি  হজম শক্তিকে বাড়িয়ে তোলে ফলে শরীরের ওজন হ্রাস করতে আপনাকে সহায়তা করে।

আরো পড়ুন: [FAST FOOD] জাঙ্ক ফুড শরীরে কিরকম প্রভাব ফেলতে পারে – জানুন ৯টি সমস্যা

Water

অনেক গবেষণায় দেখা গেছে যে শরীরের ওজন অনুযায়ী সঠিক  পরিমাণ জল খেলে ওজন কমে যায়।  সু স্বাস্থ্যের জন্যও এটি ভীষণ ভাবে উপকারী। শুধু তাই নয়, শরীরকে সতেজ রাখতেও জলের বিকল্প কিছু হয়না। আমরা যদি গরম জলের কথা বলি, তবে NCBI এর ওয়েবসাইটে (ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজিক ইনফরমেশন) প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে গরম জলের সাথে ওজন হ্রাসের বিষয়টি নিশ্চিত ভাবে সম্পর্কিত। 

Read More:  Homemade সেরা ৫টি ওজন হ্রাস করার Recipes

গবেষণা অনুসারে, গরম জল পান করা তার থার্মোজেনিক এফেক্টের কারণে শরীরে বিপাকের হার বাড়ায়, যার ফলে  শক্তি অপচয় হয় এবং ওজন কমে। গরম জল দ্বারা সৃষ্ট তাপীয় প্রভাব ওজন হ্রাস এবং নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

 আরো পড়ুন: পেটের মেদ কমানোর সেরা ১৫ টি উপায়

Leave a Comment